Quantcast

এডিনবার্গ দূর্গ

প্রতীয়মান এডিনবার্গ দূর্গ হল স্কটল্যান্ডের সবচেয়ে-পরিদর্শনীয় আকর্ষণ

ব্রিটিশ পর্যটন পুরষ্কার 2013 (ব্রিটিশ ট্র্যাভেল আ্যওয়ার্ড 2013) দ্বারা “ব্রিটিশ যুক্তরাষ্ট্র (ইউ.কে)-র শ্রেষ্ঠ ঐতিহ্যময় স্থান” হিসাবে নির্বাচিত এডিনবার্গ দূর্গ, এডিনবার্গের স্কটিশ রাজধানীতে, এক মৃত আগ্নেয়গিরির উপরে অবস্থিত। দূর্গটি স্কটিশ ইতিহাসের স্টার্ম ও ড্র্যাঙ্গ (স্টার্ম ও ড্র্যাঙ্গ হল অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষদিকে জিন-জ্যাকিউস রুশো-র দ্বারা প্রভাবিত এবং মানসিক অস্থিরতার বহিঃপ্রকাশ এবং নব্যধ্রুপদী সাহিত্য প্রথা প্রত্যাখ্যানের দ্বারা চিহ্নিত জার্মানির একটি সাহিত্য ও শৈল্পিক আন্দোলন) দেখেছে। সাম্প্রতিককালে, দূর্গটি দেশের ঐতিহাসিক ঐতিহ্যের একটি অংশ এবং সেইসঙ্গে এটি স্কটল্যান্ডের এক অন্যতম শ্রেষ্ঠ-পরিদর্শনমূলক গন্তব্যস্থল। নব্যধ্রুপদী জর্জিয়ান নিউ টাউনের সাথে এডিনবার্গ মধ্যযুগীয় সুরক্ষিত নগরদূর্গটিকে 1995 সালে ইউনেস্কো (ইউ.এন.ই.এস.সি.ও)দ্বারা বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসাবে তালিকাভুক্ত করা হয়।

এটি বিবাহ, সঙ্গীতানুষ্ঠান প্রভৃতির ন্যায় অনুষ্ঠান আয়োজনের ভাড়া হিসাবেও উপলব্ধ। এছাড়াও নগর-কেল্লাটি চিত্রগ্রহণের জন্যও এক নিখুঁত প্রেক্ষাপট নিবেদন করে। বিভিন্ন চলচ্চিত্র যেমন “দ্য প্রাইম অফ মিস্ জিন্ ব্রোডি (1969)”, “চ্যারিয়টস অফ ফায়্যার (1981)”, “ট্রেনস্পটিং (1996)”, “হাল্লাম ফো (2007)” ইত্যাদি চলচ্চিত্রগুলি দূর্গটির রোমান্ট্যিক মঞ্চে চিত্রিত হয়েছে।

রবার্ট দ্য ব্রুস ও ঊইলিয়াম ওয়াল্যেস-এর মূর্তির সঙ্গে প্রসাধিত প্রবেশ দ্বারটি এক খোয়াপাথরে নির্মিত সংকীর্ণ গলির মধ্যে দিয়ে দর্শকদের নিয়ে যায় যা ষোড়শ শতকের পোর্টকাল্যিস দ্বার-এর (লোহার শিঁকের তৈরি কপাটবিশেষ) নীচ পর্যন্ত প্রসারিত আছে। এখান থেকে, আপনি অডিও গাইড অনুসরণ করে এগিয়ে যেতে পারেন। আপনি যদি তাড়াতাড়ি আসেন, তবে আপনি অনগ্রসর দিকে একটি সফর করতে পারেন, সেখানে সেন্ট মার্গারেট চ্যাপেল হয়ে, এই পথে আপনি আরোও কিছু দেখে নিতে পারেন, যার মধ্যে রয়েছে ন্যাশনাল ওয়্যার মিউজিয়াম এবং ফেরার পথে আপনি অগ্নিসংযোগের সময়ে ওয়ান ও’ক্লক গান-এ যেতে পারেন।

দূর্গটির উল্লেখযোগ্য বিষয়ের মধ্যে রয়েছে :

  • মোনস মেগ - বিশালাকার বন্দুক যা প্রায় 3.2 কিলোমিটার দূরত্ব (2 মাইল) পর্যন্ত, 150 কিলোগ্রাম গানস্টোনের মাধ্যমে অগ্নিসংযোগের জন্য ব্যবহৃত হত।
  • ওয়ান ও’ক্লক গান- 1861 খ্রীষ্টাব্দ থেকে প্রায় প্রতিদিন বন্দুকটি দাগা হয়।
  • ক্রাউন জুয়্যেলস- ভাগ্য প্রস্তর সহ তলোয়ার, মুকুট এবং রাজদণ্ড, স্কটিশ রাজাদের অভিষেক আসন সমন্বিত দূর্গটির প্রধান আকর্ষণ গঠন করেছে।
  • সেন্ট মার্গারেট’স চ্যাপেল, রয়্যাল আ্যপার্টম্যান্ট (রাজ ভবন)গ্রেট হল্ (মহান সভাগৃহ) হল এডিনবার্গের প্রাচীনতম ভবন।
  • হাফ মুন ব্যাটারী প্রবেশদ্বারটির উৎকর্ষতায় দূর্গটিকে একটি অনন্য চেহারা দেয়। এই সারিবদ্ধ কামানের দেওয়ালগুলি প্রধান প্রবেশদ্বারের মাধ্যমে ভেতরে অনুপ্রবেশে চেষ্টারত শত্রুদের উদ্দেশ্যে তোপ দাগার জন্য ব্যবহৃত হত।
  • রয়্যাল স্কটস্ ড্র্যাগন গার্ডস রেজিমেন্ট্যাল মিউজিয়াম, রয়্যাল স্কটস্ রেজিমেন্ট্যাল মিউজিয়াম, প্রিজনস অফ ওয়্যার, স্কটিশ ন্যাশনাল ওয়্যার মিউজিয়াম এবং স্কটিশ ন্যাশনাল ওয়্যার মেমোরিয়াল অষ্টাদশ শতকের শেষের দিকে উৎপীড়ন ও অগ্নিপরীক্ষার দিনগুলিকে পুর্নআহ্বান জানায়।

ধারণা এবং অভিজ্ঞতার বশবর্তী কিছু মানুষ সুপারিশ দেন যে, এডিনবার্গ দূর্গ হল ভুতুড়ে। তবে, এর স্বপক্ষে সঠিক কোনও সাক্ষ্য প্রমাণ মেলে নি। তবে, যেহেতু এখানে হত্যাকান্ড চলত, তাই এখানে যারা তাদের জীবন হারিয়েছেন সেইসমস্ত ভূতের দ্বারা এই দূর্গটি ভুতুড়ে অধ্যূষিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এডিনবার্গ দূর্গ মানচিত্র

এডিনবার্গ দূর্গ সম্পর্কে তথ্যাবলী

  • প্রচন্ড শক্তিশালী যোদ্ধাদের দ্বারা সুরক্ষিত এক গিরি দূর্গ।
  • এডিনবার্গের প্রাচীনতম কবিতা, যুদ্ধে তাঁদের জীবন হারানোর পূর্বে প্রায় এক বছরের জন্য দুর্গে ক্ষুধার্ত গোডোদ্দীন যোদ্ধাদের বিষয়ে কেন্দ্রীভূত।
  • অনেক বছর ধরে, স্কটিশ ও ইংরেজদের মধ্যে দূর্গটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে যুদ্ধ হয়েছিল।
  • ওয়ান ও’ক্লক গান, 1861 খ্রীষ্টাব্দে প্রথমবারের জন্য দাগা হয়েছিল।

এডিনবার্গ দূর্গ কোথায় অবস্থিত?

দূর্গটি, এডিনবার্গ বিমানবন্দর থেকে প্রায় 7.6 মাইল দূরে অবস্থিত। ভায়া রুট A8 হয়ে দূর্গটিতে পৌঁছাতে আপনার প্রায় 20 মিনিট সময় লাগবে (ট্র্যাফিক ব্যতীত)। এছাড়াও আপনি গাড়ি, বাস ও মেট্রোর মাধ্যমেও দূর্গটিতে পৌঁছাতে পারেন। এডিনবার্গ শহরের কেন্দ্রে পৌঁছাতে বিমানবন্দর একটি এক্সপ্রেস বাস পরিষেবা এয়্যারলিংক 100 প্রদান করে। স্কটল্যান্ডের মূখ্য রেলওয়ে স্টেশনটি হল ওয়েভারল্যে স্টেশন।

ঠিকানা : ক্যাসলহিল, এডিনবার্গ, ই.এইচ-1 2-এন.জি, ব্রিটিশ যুক্তরাষ্ট্র (U.K).

এডিনবার্গ দূর্গ পরিদর্শনের সেরা সময়

গ্রীষ্মকালে, দিনের শুরুর সময় সকাল 9:30-টা. থেকে সকাল 10:00-টা. হল দূর্গটি পরিদর্শনের উপযুক্ত সময়। আপনি দু’ঘন্টার মধ্যে এডিনবার্গ দূর্গে একটি ভ্রমণ করতে সক্ষম হবেন। দুপুর 12:30-টা. হল, ওয়ান ও ক্লক গান পরিদর্শনের কেন্দ্র বেছে নেওয়ার অনুকূল সময়। দিনের বাকি সময় দূর্গটিতে ভিড় হয়ে যায়। আপনি যদি বেশ কিছু ভালো ছবি তুলতে চান, তবে দুপুরের দিকে দূর্গটি পরিদর্শনে যান, কারণ এই সময় সূর্যের আলো উজ্জ্বল থাকে এবং ছায়াও অভিক্ষিপ্ত থাকে। আবহাওয়া কঠোর হওয়ার দরুণ, শীতকালের সময় স্কটল্যান্ড পরিদর্শন এড়িয়ে যাওয়াটাই বাঞ্চনীয়।

এডিনবার্গ দূর্গ দর্শনের সময়

গ্রীষ্মকালের সময় (1-লা এপ্রিল থেকে 30-শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত) এডিনবার্গ দূর্গটি সকাল 9:30-টা. থেকে সন্ধ্যা 6:00-টা. পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকে, অন্যদিকে শীতকালে (1-লা অক্টোবর থেকে 31-শে মার্চ পর্যন্ত) এটি বিকেল 5:00-টা. পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকে।

এডিনবার্গ দূর্গের টিকিট

16 থেকে 59 বছরের মধ্যবর্তী একজন প্রাপ্তবয়স্কের প্রবেশের টিকিট মূল্য হল £16.00.। 5 থেকে 15 বছরের মধ্যে শিশুদের টিকিট মূল্য হল £9.60.

এডিনবার্গ দূর্গের উপর আরোও তথ্য

  • এডিনবার্গ দূর্গের স্থানাঙ্ক কি কি?
    55.9486° N (55.9486 ডিগ্রী উত্তর) এবং 3.2008° W (3.2008 ডিগ্রী পশ্চিম)।
  • এডিনবার্গ দূর্গের নিকটবর্তী আকর্ষণীয় স্থানগুলি কি কি?
    স্কটিশ পার্বত্য অঞ্চল, হোলিরুড প্যালেস, বেন্ নেভিস, কেলভিনগ্রোভ আর্ট গ্যালারী ও মিউজিয়াম, আউটলুক পার্ক, বার‍্যেল কালেকশন্, লোচ লোমোন্ড ও আর্থার’স সীট্ ইত্যাদি।

* সর্বশেষ সংযোজন : September 24, 2015

Published On: Thursday, September 24th, 2015