Quantcast

পাটোং সৈকত, থাইল্যান্ড

ফুকেত- এর একটি জনপ্রিয় ছুটির গন্তব্যস্থল,পাটোং সৈকত

পাটোং সৈকত সূর্য, বালি, সমুদ্র, এবং প্রলোভনসঙ্কুল রাত্রির একটি সন্মোহনী মিশ্রণ। থাইল্যান্ডের ফুকেত দ্বীপের পশ্চিম উপকূলবর্তী এক জনপ্রিয় অবকাশ যাপনের গন্তব্যস্থল, পাটোং সৈকতে সারা বিশ্বব্যাপী পৃষ্ঠপোষক রয়েছে।অতি উন্নত এই সৈকত রিসর্ট শহরটিতে প্রায় 2 মাইল দীর্ঘ বিস্তৃত সাদা বালুকাময় সমুদ্র-সৈকত ও সন্নিহিত প্রচুর রেস্তোঁরা, হোটেল ও বার্ রয়েছে। এ ছাড়াও, পাটোং-এ বেশ কিছু শ্রেষ্ঠ নিশি-সরণী আছে, যেগুলি তাদের নিবেদিত অগোছালো অভিলাষার জন্য দারুণ পরিচিত – যেমন প্যারাডাইস কমপ্লেক্স ও বাংলা রোড। বর্তমান কিছু বছরে, শহরটিতে একটি বৃহৎ শপিং মল (জাংসেইলন) এবং প্রচুর দোকান যুক্ত হয়েছে; যেগুলিতে পোশাক, আনুষঙ্গিক সামগ্রী ও হস্তশিল্প বিক্রীত হয়।

আকর্ষণ

পাটোং-এর সৈকত এলাকা নিজেই একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় আকর্ষণ। এটি সাঁতার, রৌদ্রস্নান ও জেট স্কিং ইত্যাদি সুযোগ-সুবিধা নিবেদন করে। নীচে উল্লিখিত পাটোং সৈকতের কাছাকাছি অন্যান্য পরিদর্শনমূলক স্থানগুলি সম্পর্কে অনুসন্ধান করুন।

বাংলা রোড - বহিরাঙ্গন বার, গো-গো বার, ডিস্কো, নিওন সাইনস, উচ্চনিনাদ-সংগীত, রাস্তার বিনোদন, যৎসামান্য পোশাক পরিহিতা যুবতী তরুণী এবং সই বাংলা নামক যানবাহন নিষিদ্ধ সম্প্রসারণটি তার নৈশজীবনের জন্য বিখ্যাত। সূর্য অস্ত যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এখানকার রাস্তাগুলি জনমানবে ভরে ওঠে, যাদের অধিকাংশই এখানে পান, নৃত্য ও নিজেদেরকে হারিয়ে ফেলার জন্য এখানে আসে। সিডাকসন বীচ ক্ল্যাব আ্যন্ড ডিস্কো, সই সী ড্র্যাগন, হিরোস বার ও সিন সিটি বার ইত্যাদি হল বাংলা ঘোরাফেরার (বাংলা হ্যাংআউট)জন্য বেশ কিছু প্রিয় স্থান। বার ও পাব ছাড়াও বাংলা রোডে রেস্তোঁরা, মাসাজ পার্লার, টেলার সপ্, স্মারণিক ও উপহারের দোকান ও হোটেল রয়েছে।

প্যারাডাইস কমপ্লেক্স - এটি বাংলা রোডের ন্যায় অনুরূপ। তবে এটির একমাত্র পার্থক্য হল যে এটি সমকামীদের জন্য ঈক্ষণকামী আনন্দ উপলব্ধি প্রদান করে।

ওয়াট সিউয়ান খিরি ওং - সাধারণভাবে সুপরিচিত ওয়াট পাটোং হল একটি থাই বৌদ্ধ মন্দির। এটি পাটোং পাহাড়ের পাদদেশে ফারাবারামি ও ফিশিট কারানি রোডের সংযোগস্থলে অবস্থিত। মন্দিরটিতে নকশায়িত ঐতিহ্য ভবন ও প্রাথর্না সভার সঙ্গে ভগবান বুদ্ধের বিভিন্ন মূর্তি সহ একটি পবিত্র বাতাবরণ রয়েছে।মন্দিরে বসবাসকারী বহু সন্ন্যাসী রয়েছেন যাঁরা প্রকৃতিবাদী জীবনযাপন করেন।

টাইগার কিংডম - এটি এমন একটি স্থান যেখানে একজন ব্যাক্তি একই কক্ষে একটি বাঘের সঙ্গে নিরাপদ হতে পারেন এবং এটিই হল টাইগার কিংডম বা বাঘের রাজত্ব। টাইগার কিংডম-এর ধারণাটি বেশ সাধারণ। তারা জন্ম থেকেই মানুষের কাছাকাছি থাকে এবং তাদেরকে লালন করার অনুমতিও মঞ্জুর রয়েছে। মানুষেরা তাদের সঙ্গে ছবিও নিতে পারেন। যদিও সেখানে বেশ কিছু সংখ্যক নিয়ম-শৃঙ্খলা রয়েছে যা নথিপত্রে সাক্ষর ও অনুসরণ আবশ্যক যা চুড়ান্ত সাক্ষাতের পূর্বে সাক্ষর করা বাঞ্চনীয়। টাইগার কিংডম বা বাঘের রাজত্ব, পাটোং গো-কার্ট স্পিডওয়ের নিকটে অবস্থিত এবং এটি সকাল 9:00-টা. থেকে সন্ধ্যা 6:00-টা. পর্যন্ত খোলা থাকে।

পাটোং বক্সিং স্টেডিয়াম - আরেকটি পর্যটন প্রিয় হল সাই নামইয়েন রোডে অবস্থিত 350-আসন বিশিষ্ট স্টেডিয়াম যেখানে মুয়ে থাই বক্সিং ম্যাচ প্রদর্শিত হয়। এই দ্বন্দযুদ্ধ স্টেডিয়ামের প্রশিক্ষণ শাখায় যারা অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক সেই সমস্ত অপেশাদার ও পেশাগত প্রশিক্ষণকারীদের মধ্যে হয়। আসনের সঠিক অবস্থানের উপর ভিত্তি করে টিকিট বিক্রীত হয়; রঙ্গভূমির যত কাছাকাছি আসন হবে, টিকিটের মূল্যও তত উচ্চ হবে। এখানে একটি বিশাল স্ক্রিন্ বা পর্দা রয়েছে, যা পিছনে আসন গ্রহণকারীদের এই ক্রীড়া-প্রতিযোগিতা প্রত্যক্ষীকরণ সহজ করে তোলে।

পাটোং সৈকতের নিকটবর্তী আকর্ষণ

সমূদ্র-সৈকত – ফূকেত দ্বীপের পশ্চিম উপকূলবর্তী দীর্ঘ প্রসারণে পাটোং সৈকত ছাড়াও অন্য অনেক সৈকত রয়েছে। পর্যটকরা একটি স্বল্প-ভ্রমণে সান্নিধ্যতম কয়েকটি স্থানে সফরের আনন্দ নিতে পারেন; যেমন কালিম্, ফ্রিডম ও প্যারাডাইস; সাধারণত ভিড় থেকে অব্যাহতি পেতে এগুলি উল্লেখযোগ্য। পাটোং-এর উত্তরে কালিম সৈকত হল ভ্রমণ অন্বেষণকারী ও পাহাড় ভ্রমণকারীদের জন্য একটি জনপ্রিয় পরিভ্রমণ স্থান। এর দক্ষিণ প্রান্তে ফ্রিডম সৈকত পাটোং উপসাগর থেকে প্রায় 650 ফুট ওপরে অবস্থিত এবং এখানে শ্বেত বালুকা, দীর্ঘ-লাঙ্গুলবিশিষ্ট নৌকা ও সানবাথ বা রৌদ্রস্নানের জন্য অনেক জায়গা রয়েছে। দক্ষিণ-পশ্চিমে আচ্ছাদিত প্যারাডাইস সৈকত হল প্রায় 490 ফুটের এক অত্যাশ্চর্য্য ও ক্ষুদ্র টুকরো, যা প্রবালদ্বীপ এবং পাম ও ক্রান্তীয় কাজুবাদাম গাছের ঘন আবরণে আচ্ছাদিত।

ফুকেত মাইনিং মিউজিয়াম – কাঠুতে অবস্থিত এই যাদুঘর বা মিউজিয়ামটি, দ্বীপের টিন-খননের ঐতিহ্য থেকে শুরু করে চিত্রপট এবং গুহা পুর্নস্থাপণের মূর্তি, খনন, খনি-শ্রমিক ও তাদের পরিবারের জীবনযাপনের পদ্ধতি প্রদর্শিত আছে। ভায়া 4029 এবং পি.কে. 3030 রুটের মাধ্যমে পাটোং সৈকত থেকে মিউজিয়ামটির দূরত্ব হল প্রায় 6.8 মাইল। এটি সোমবার থেকে শনিবার, সকাল 9:00-টা. থেকে বিকেল 4:00-টা. পর্যন্ত খোলা থাকে।

কাঠু জলপ্রপাত – যে সমস্ত পর্যটকরা জুন ও নভেম্বরের মাঝামাঝি কোনও সময়ে পাটোং পরিদর্শনে যাওয়ার ইচ্ছা রাখেন, তবে কাঠু জলপ্রপাত অবশ্যই দর্শন করুন। এর কারণ হল এর প্রকৃত সৌন্দর্য কেবলমাত্র বর্ষাকালেই পরিলক্ষিত হয়। এই অসাধারণ জলপ্রপাতটি এক ঘন সবুজাভ তৃণশ্যামল দ্বারা পরিবেষ্টিত। পুলের মধ্যে সংগৃহীত বৃষ্টির জল, একটি ডুব দেওয়ার জন্য আদর্শ। এটি পাটোং সৈকত থেকে প্রায় 4.9 মাইল দূরে অবস্থিত।

ক্রিয়াকলাপ

প্রত্যেক পাটোং সৈকত পর্যটকদের হৃদয়ের সান্নিধ্যে দু’টি জিনিষ রয়েছে – দিনের বেলায় সৈকতে আলস্যে কাটানো এবং রাতের বেলায় বাংলা রোডের ন্যায় অত্যুষ্ণ জায়গায় আমোদ-প্রমোদ ও বারে প্লাবিত হয়ে যাওয়া। তবে, এটি শুধুমাত্র পাটোং সৈকতের দ্বারা নিবেদিত উন্মত্ততাকে ইঙ্গিত করে। এছাড়াও পাটোং-এর মধ্যে ও নিকটবর্তী আরোও অন্যান্য কিছু জনপ্রিয় কার্যক্রমও রয়েছে যা যে কেউ উপভোগ করতে পারেন।

বাঞ্জি জাম্পিং – পাটোং-য়ে রোমাঞ্চ অন্বেষণকারী ও লোমহর্ষক উত্তেজনায় উৎসাহী প্রত্যেক ভ্রমণকারীদের জন্য জঙ্গল বাঞ্জি জাম্পিং হল এক অবশ্য-গন্তব্য স্থল। এটি গাড়ির মাধ্যমে কেবল 15 মিনিটের দূরত্ব এবং নিশ্চিতরূপে নিরাপদে মজা উপভোগ করার জন্য এক সু-প্রতিষ্ঠিত নির্মাণ। প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীদেরকে পাঁচটি বিভিন্ন উপায়ে বাঞ্জি জাম্পিং প্রদান করা হয় – স্ট্যান্ডার্ড, ট্যান্ডেম, ক্যাটাপুল্ট, ব্যাকওয়ার্ড এবং ওয়াটার টাচ। উল্লাসজনক অভিজ্ঞতার সাথে অংশগ্রহণকারীরা প্রশংসাপত্র, টি-শার্ট ও ফোটোগ্রাফিক স্মৃতিও সঙ্গে করে নিয়ে যায়।

ফ্ল্যাইং হনুমান – ফুকেটের ঘনবর্ষিত অরণ্যকে পরিদর্শনের এক অন্যতম শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উপায় হল এক সরঞ্জামের সাহায্যে উড়ান উপলব্ধিকরণ। অংশগ্রহণকারীদের ঝুলন্ত সেতু, রেল ও জিপলাইনের মাধ্যমে আটকানোর জন্য সমস্ত রকমের নিরাপত্তাজনিত উপকরণ প্রদান করা হয়। সকলে এটি নিশ্চিত করুন যে কোনওরকম কীটপতঙ্গের কামড় ছাড়াই অভিজ্ঞতা উপলব্ধির জন্য যথেষ্ট পরিমাণে পতঙ্গ বিতাড়কের দ্বারা নিজেকে প্রলেপিত করুন।

জোর্বিং – আনুষ্ঠানিকভাবে হিল রোলিং হিসাবে অভিহিত এটি সমস্তকিছুকে একটি বিশালাকার প্ল্যাস্টিক বলের ভিতরে ঢুকিয়ে খাড়া পাহাড় থেকে নীচে গড়িয়ে দেওয়া হয়। কালিম সমূ্দ্র-সৈকতে অবস্থিত, সংস্থা দ্বারা নিবেবিত রোলারবল যা পাটোং থেকে মুক্তভাবে স্থানান্তরণ উপলব্ধ করায়।

গো-কার্টিং – পাটোং গো-কার্ট স্পিডওয়ে শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্ক উভয়ের জন্যই একটি মিনি গ্র্যান্ড প্রিক্স-এর অভিজ্ঞতার প্রস্তাব দেয়। এটিতে তীক্ষ্ণ বাঁক এবং মসৃণ মোড়ের সঙ্গে একটি 820 গজের রেসিং ট্র্যাক আছে। সংযুক্তি হিসাবে, যারা আরোও কঠিন প্রতিযোগিতামূলক ড্রাইভের খোঁজ করছেন, তাদের জন্য এখানে একটি অফ-রোড ট্র্যাকও রয়েছে।

বাসস্থানোপযোগী ব্যবস্থা

একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় পর্যটন গন্তব্যস্থল হয়ে ওঠা পাটোং সৈকতে বাসস্থানোপযোগী বিকল্পের কোন অভাব নেই। কয়েক ধাপ অন্তর অন্তরই এখানে বিচিত্র প্রকারের হোটেল, পরিষেবা আবাসন, বেড ও ব্রেকফাস্ট, ভিলা ও রিসর্ট রয়েছে। হোটেলগুলি সমুদ্র সৈকত এবং এই অঞ্চল থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরেই অবস্থিত এবং সেগুলি তাদের নিশিজীবনের জন্য প্রসিদ্ধ; এগুলির মধ্যে বাংলা রোড সস্তা হতে পারে। নিশ্চিতভাবেই হোটেল মালিকদের যাদের কোনও ইংরাজী কথায় দক্ষ কর্মী নেই, কিছু সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে এবং দামও কম।

ব্যাকপ্যাকার ও সাশ্রয়ী ভ্রমণার্থীরা হোস্টেল এবং অতিথিশালায় থাকতে পছন্দ করতে পারেন। অপ্সরা রেসিডেন্স ফুকেত, পাটোং ব্যাকপ্যাকার হোস্টেল, ডাইভ ডেন, প্রিউ ওয়ান গেস্টহাউস ও প্রেসলে গেস্টহাউস হল পাটোং-এর বেশ কিছু সাশ্রয়ী মূল্যের ভালো বাসস্থানোপযোগী স্থান। সেগুলি সমূ্দ্রের ধারে না হতে পারে এবং শুধুমাত্র সাধারণ কিছু সুযোগ-সুবিধা প্রদান করতে পারে, তবে যারা তাদের অধিকাংশ সময়ই বাড়ির বাইরে কাটাতে ইচ্ছুক এবং শুধুমাত্র ঘুমানোর জন্য বাড়িগুলি ব্যবহার করতে চান, তাদের জন্য এগুলি আদর্শ। যে সমস্ত পর্যটকদের অর্থ খরচ করাটা খুব একটা সমস্যার কিছু নয়, তাদের বাসস্থানোপযোগী স্থানের মধ্যে রয়েছে আমারি ফুকেত, লা ফ্লোরা রিসর্ট পাটোং ও আ্যবসোলিউট বাংলা স্যুটস। এগুলিতে বিলাসবহুল আস্বাদন, দৃশ্যত আনন্দদায়ক অভ্যন্তরীণ প্রসাধন, উৎসর্গীকৃত পরিষেবা কর্মীসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিবেদন করে; যেমন সুইমিং পুল, স্পা, জিম্ ও ব্যবসায়িক কেন্দ্র। এছাড়াও পাটোং-এ মাঝারি-মানের হোটেলও উপলব্ধ রয়েছে; যেগুলিতে শালীন কক্ষ, বন্ধুসুলভ সেবা এবং নির্বাচিত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। পাটোং ম্যানশন হোটেল, হলিডে ইন্ রিসর্ট ফুকেত এবং সীভিউ পাটোং হোটেল হল এই অঞ্চলের সুপরিচিত মাঝারি-মানের হোটেল।

পাটোং সৈকত মানচিত্র

পাটোং সৈকত সম্পর্কে তথ্যাবলী

  • পাটোং-এ প্রায় 750-টি অনুমতিপ্রাপ্ত হোটেল এবং কর্তৃপক্ষের দ্বারা নিবন্ধিত 46,803-টি আবাসন রয়েছে।
  • পাটোং, 2004 সালের সুনামি এবং ভূমিকম্পের সময় গুরুতরভাবে ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। তারপর থেকে, এটি প্রশংসনীয়ভাবে পুনুরুদ্ধার করা হয়েছে।
  • ফুকেত এবং পাটোং পর্যটন দ্বীপপুঞ্জ-এর চেয়ে খনন দ্বীপপুঞ্জ হিসাবে বেশি ব্যবহৃত হয়। তার বিভিন্ন জাতিগত জনসংখ্যা তার মানুষের মূল গঠনের প্রতিও যথেষ্ঠ ঋণী যারা বহুদূর থেকে খনিতে কাজ করতে এখানে পাড়ি দিয়েছিল।

পাটোং সৈকত কোথায় অবস্থিত?

পাটোং সৈকতটি, ফুকেত দ্বীপে, ফুকেত শহরের সন্নিকটে কাঠু জেলায় অবস্থিত। শহরটি থেকে গাড়ির মাধ্যমে পৌঁছাতে প্রায় 20 মিনিট সময় লাগে।

বিমান মাধ্যমে :বিদেশী পর্যটকরা বিমানের মাধ্যমে সরাসরি ফুকেত-এ উড়ে আসতে পারেন বা পরোক্ষভাবে ভায়া ব্যাংকক হয়েও আসতে পারেন। ফুকেত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হল পাটোং-এর নিকটবর্তী গন্তব্যস্থল। এটি প্রায় 22মাইল দূরে অবস্থিত। বিমানবন্দর থেকে বেশ কিছু পরিবহন বিকল্প উপলব্ধ আছে; যা হল মিটার ও “লিমুজিন” ট্যাক্সি থেকে শুরু করে ভাড়া করা মিনি-বাস ও স্থানীয়-বাস। ট্যাক্সি হল পাটোং সৈকতে দ্রুতভাবে পৌঁছানোর সবচেয়ে সেরা উপায়। ট্র্যাফিকের উপর ভিত্তি করে, ভায়া 402 রুটের মাধ্যমে এখানে পৌঁছাতে প্রায় 40 থেকে 60 মিনিট সময় নেয়।

পর্যটকরা অনেক সময় ব্যাংকক থেকে ফুকেত দ্বীপ ও পাটোং সৈকতে পৌঁছাতে ডিট্যুর (বিকল্প রাস্তায়) যেতে পছন্দ করেন। ব্যাংকক এবং ফুকেত-এর মধ্যে প্রতিদিন, নিয়মিত সময় অন্তর অর্ন্তদেশীয় বিমানগুলি চলাচল করে এবং এক্ষেত্রে পৌঁছাতে মাত্র এক ঘন্টার মতো সময় লাগে। যদিও সড়ক মাধ্যমে ভ্রমণ সেরকম পছন্দসই বিকল্প নয়, তবে বেশ কয়েকটি শীততাপ নিয়ন্ত্রিত ও অ-শীততাপ নিয়ন্ত্রিত বাস শহর দু’টিকে সংযুক্ত করে রেখেছে। এতে ভ্রমণে প্রায় 12 থেকে 14 ঘন্টা সময় লাগে। ফুকেত ও পাটোং সৈকতের মধ্যবর্তী দূরত্ব অতিক্রম করার জন্য স্থানীয় বাস, ট্যাক্সি বা ভাড়া গাড়ির সহায়তা নেওয়া যেতে পারে।

পাটোং সৈকত পরিদর্শনের সেরা সময়

বিষুবরেখার সান্নিধ্যতার দরুণ, গ্রীষ্মের (মার্চ থেকে মে) মরশুমে পাটোং সৈকতে গরম অনুভূত হয়, বর্ষার (মে থেকে অক্টোবর) মরশুমে ভারী বর্ষণ হয় এবং (নভেম্বর থেকে মার্চ) শীতকালে আবহাওয়া মনোরম ও শীতল থাকে। অতএব, শীতকালই হল পাটোং-এর সৈকত উপভোগ করার সেরা সময়। তবে এইসময় আবার হোটেলের দর, রেস্তোঁরার দাম এবং অন্যান্য আরোও পর্যটন পরিষেবার মূল্য বেড়ে যায়। সাশ্রয়ী ভ্রমণার্থীরা বর্ষার মরশুমে ভ্রমণে আসতে পারেন, কারণ এসময় থাকার জায়গা, খাবার-দাবার, পরিবহন ও পরিষেবায় উপলব্ধ ছাড় পেতে পারেন।

পাটোং সৈকতের উপর আরোও তথ্য

কোনও হোটেল অনুসন্ধান বা বুকিং করার সময় আপনার কী কী জিনিস মনে রাখা উচিত?

  • হোটেল বুকিং ওয়েবসাইট পাটোং-এ বাসস্থানোপযোগী স্থান সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের জন্য এক সমৃদ্ধময় সম্পদ। হোটেলের তথ্য সংক্রান্ত বিষয়ে নিশ্চিত সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্বে হোটেলগুলিতে পূর্বে ব্যবহারকারীদের রিভিউ বা পর্যবেক্ষণ এবং পোস্ট করা ছবিগুলি ভালোভাবে গবেষণা করে নেওয়াই শ্রেয়। এগুলির পরেও, গোপনীয়তা রক্ষায়-সচেষ্ট দম্পতিরা কখনও শেষমেশ হোস্টেলে যাওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করবেন না, এমনকি সেগুলি “বুটিক হোটেল” নামে থাকলেও, সেগুলি থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন।
  • পাটোং-এর মধ্যে ব্যস্ত রাস্তাগুলি উৎসব এবং দিনের নির্দিষ্ট কিছু সময়ে গোলযোগপূর্ণ অবস্থায় পেতে পারেন। যারা শান্তিপূর্ণ অবকাশ যাপনের আশা নিয়ে গেছেন, তাদের এইসমস্ত সরণীতে থাকার হোটেল বুকিং করাটা এড়িয়ে চলাই বাঞ্চনীয়।
  • হোটেলগুলি সাধারণত অতিরিক্ত মূল্যে বা বিনামূল্যেই বিমানবন্দরে স্থানান্তরণের প্রস্তাব নিবেদন করে। যদি না আপনি দরাদরি এবং দীর্ঘ ভ্রমণের সময় অপব্যয় করতে না চান, পরিষেবা উপলব্ধতার ব্যবহার আপনার পাটোং সফরের শুরুতেই একটি অতিশয় বিরক্তিকর অভিজ্ঞতা থেকে আপনাকে রক্ষা করতে পারে।

পাটোং-এর পারিপার্শ্বিক ভ্রমণ কি করে নির্ঝঞ্ঝাট হয়ে উঠতে পারে?

  • যদিও পাটোং-এর অনেক মানুষ ইংরাজী জানেন, তবে তাদের সাবলীলতায় একটি সমস্যা হতে পারে। আপনি যদি কোনও ভুল বোঝাবুঝি না চান, আপনার হোটেলে এসে পরিভ্রমণনমূলক স্থানের ঠিকানা একটি কাগজে থাই ভাষায় লিখে দিন।
  • সর্বদাই আপনি নিজের সঙ্গে একটি জলের বোতল রাখুন এবং সবসময় জলযোজিত (হাইড্রেটেড) থাকুন। আপনি যদি প্রস্তুত না থাকেন তাহলে উত্তাপ অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠতে পারে।
  • চূড়ান্ত মরশুমে পাটোং বেশ ভালো রকম জণাকীর্ণ হয়ে উঠতে পারে। সুতরাং, আপনার নিজস্ব জিনিসপত্রের প্রতি সর্তকতা অবলম্বন করা আবশ্যক এবং ঘটনা হল যে, আপনি যে সমস্ত স্থানগুলি পরিদর্শনে যেতে চান, হতে পারে সেগুলি আপনার ভাবনার চেয়েও অনেক বেশি ভিড় হতে পারে। আপনি যদি ভিড় পছন্দ না করেন, বর্ষার মরশুমে আপনার পরিদর্শনে যাওয়াটাই শ্রেয়।
  • * সর্বশেষ সংযোজন : September 29, 2015

Published On: Tuesday, September 29th, 2015