Quantcast

মুসৌরি, উত্তরাখন্ড

মুসৌরি ভারতের সবচেয়ে এক অন্যতম শ্রেষ্ঠ জনপ্রিয় শৈল-শহর উত্তরাখন্ড রাজ্যে অবস্থিত মুসৌরি, 1823 সালে ব্রিটিশদের দ্বারা একটি শৈল শহর রূপে স্থাপিত হয়। এটি দেশের সবচেয়ে এক অন্যতম জনপ্রিয় শৈল শহর এবং এটি প্রতি বছর পর্যটকদের একটি বিপূল সংখ্যা সূচিত করে। দিল্লী এবং অন্যান্য উত্তর ভারতীয় শহরগুলির সান্নিধ্যতার দরুণ, শহরটি সপ্তাহান্তের একটি জনপ্রিয় প্রবেশদ্বার হয়ে উঠেছে। শৈল শহরটি তার সুন্দর বনবীথি, উত্তেজনাপূর্ণ পাহাড়-পর্বত, চমকপ্রদ জলপ্রপাত এবং বিভিন্ন সমৃ্দ্ধ উদ্ভিদকূলের জন্য প্রসিদ্ধ। মুসৌরির আকর্ষণ গান হিল : [...]Read More

কাংড়া, হিমাচল প্রদেশ

কাংড়া ভারতের সবচেয়ে এক অন্যতম সুন্দর উপত্যকা কাংড়া, ভারতের হিমাচল প্রদেশ রাজ্যে অবস্থিত। এলাকার নিছক সৌন্দর্যের সঙ্গে, বিভিন্ন অঞ্চলে অবস্থিত বেশ কিছু মন্দিরের দরুণ উপাসকমন্ডলী তথা পর্যটকের মধ্যে শহরটি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কাংড়ার বিভিন্ন আকর্ষণ বজ্রেশ্বরী দেবী মন্দির : মন্দিরটি বজ্রেশ্বরী দেবীকে উৎসর্গীকৃত। এটি তার সম্পদের জন্য প্রসিদ্ধ ছিল, এর ফলস্বরূপ এটি গজনির বিখ্যাত মেহমুদ দ্বারা আক্রান্ত এবং লুণ্ঠিত হয় এবং ইনি এখানে একটি মসজিদ নির্মাণ করেন। তবে, এটি পুনরুদ্ধার করা হয় এবং বর্তমানে [...]Read More

ডালহৌসি, হিমাচল প্রদেশ

ডালহৌসি ভারতের সবচেয়ে এক অন্যতম জনপ্রিয় অবকাশ গন্তব্যস্থল ডালহৌসি, ভারতের হিমাচল প্রদেশে অবস্থিত একটি শান্ত শহর এবং অপেক্ষাকৃত এক শান্ত অবকাশ অন্বেষণকারী স্থান হিসাবে পর্যটকদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়। শোনা যায় এই শহরের বেশীরভাগ আকর্ষণ ঔপনিবেশিক যুগের। দূরবর্তী পাহাড়ের চিত্র অনুপম দৃশ্য ও সতেজ পার্বত্য বায়ুসহ উপত্যকা, ডালহৌসিকে জনপ্রিয় গন্তব্যে পরিণত করেছে। ডালহৌসির আকর্ষণ গির্জা : যেহেতু ডালহৌসি, ব্রিটিশদের একটি গ্রীষ্মকালীন পশ্চাদপসরণ ছিল, সেই কারণে এখানে বেশ কয়েকটি গির্জা দেখতে পাওয়া যায়। সেন্ট জন’স গির্জা ও [...]Read More

কূফরি, হিমাচল প্রদেশ

সিমলার কাছাকাছি অবস্থিত কূফরি একটি ক্ষুদ্র তবুও চিত্র অনুপম শৈল রিসর্ট কূফরি শহরটি, ভারতের হিমাচল প্রদেশের সিমলা জেলায় অবস্থিত। পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত শহরটি ভ্রমণার্থীদের প্রাকৃতিক স্কি ঢাল এবং সেইসাথে এই অঞ্চলের অত্যাশ্চর্য্য দৃশ্য দেখার প্রস্তাব দেয়, বিশেষত এটি সিমলার খুবই সান্নিধ্যে অবস্থিত হওয়ায় এটি পর্যটকদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কূফরিতে আকর্ষণ মাহাশূ শৃঙ্গ: এই শৃঙ্গটি কূফরির বেশ সান্নিধ্যেই অবস্থিত এবং এটি এমন একটি স্থান যেখানে ভ্রমণার্থীরা অবশ্যই ভ্রমণ করেন। উঁচু শিখরের পথে হাঁটার অসুবিধা [...]Read More

কুলু-মানালি, হিমাচল প্রদেশ

কুলু এবং মানালি অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সঙ্গে আশীর্বাদিত। কুলু ও মানালি হল হিমাচল প্রদেশে অবস্থিত দুটি শহর এবং একে অপরের থেকে প্রায় 40 কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এগুলিকে পর্যটন আবর্তনের একটি একক অংশ হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং তাদেরকে একসঙ্গে কুলু-মানালি বলা হয়। কুলু ও মানালি-তে আকর্ষণ কুলুর আকর্ষণের অধিকাংশই মন্দির কেন্দ্রিক হওয়ায়, কুলু তীর্থযাত্রীদের এবং ভক্তদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্যস্থল। এই অঞ্চলের বিশিষ্ট কিছু মন্দিরের মধ্যে রয়েছে বিজলি মহাদেব মন্দির, বৈষ্ণোদেবী মন্দির এবং রঘুনাথ মন্দির। [...]Read More

লাদাখ

বিশ্বের এক অন্যতম সর্বোচ্চ অঞ্চল – ভারতের লাদাখ লাদাখ উত্তর ও পূর্ব কাশ্মীর অঞ্চলের একটি বড় এলাকা। এটি বিশ্বের এক সর্বোচ্চতম অঞ্চল এবং এটি উচ্চ সমভূমি এবং গভীর উপত্যকার সমন্বয়ে গঠিত। এই স্থানটি 1970 সালে পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত হয় এবং তারপর থেকে এটি পর্বতারোহীদের এবং যারা ট্রেক বা পদভ্রমণ করতে পছন্দ করেন, তাদের কাছে সবচেয়ে এক অন্যতম প্রিয় জায়গা হয়ে আসছে। লাদাখের এখনও প্রধান পর্যটন আকর্ষণ হল নয় তলা কাঠামো, যেটি ষোড়শ শতকে নির্মিত হয়। [...]Read More

লোটাস মন্দির, দিল্লী

দিল্লীর লোটাস মন্দির দিল্লীর লোটাস মন্দির হল বাহাই ধর্মে বিশ্বাসী একাত্ম মানুষদের জন্য ধর্মাচরণের একটি জায়গা, এটি বিশ্বের সবচেয়ে এক অন্যতম সর্বাধিক পরিদর্শনীয় স্থাপত্য বিস্ময়। এটি 1986 সালে উন্মুক্ত হয়। এখানে প্রবেশের জন্য কোনও প্রবেশমূল্য লাগে না এবং প্রাঙ্গনটি নির্মল, পরিচ্ছন্ন ও বিপূলাকায়। স্বাভাবিকভাবে, লোটাস মন্দির, ভারতের রাজধানীতে মানুষদের অবশ্য পরিভ্রমণমূলক স্থানগুলির মধ্যে উচ্চ স্হানে রয়েছে। বাহাই ধর্মবিশ্বাস : বাহাই ধর্মবিশ্বাস সম্পর্কে খুব অল্প জানা গেছে। বাহাই হল বিশ্বের নবীনতম ধর্ম। তবে, অন্যান্য ধর্মের অসদৃশ [...]Read More

কশৌলি, হিমাচল প্রদেশ

কশৌলি হিমাচল প্রদেশের একটি চিত্র অনুপম পর্যটন আকর্ষণ ভারতের হিমাচল প্রদেশ রাজ্যে অবস্থিত কশৌলি, তার সমৃদ্ধ ইতিহাস ও সুন্দর আবহাওয়ার দরুণ, এই অঞ্চলের একটি খুবই জনপ্রিয় শহর। এই শহরে বেশ কিছু সংখ্যক ইতিহাস বিজড়িত আকর্ষণ বিদ্যমান। কশৌলির আকর্ষণ মাঙ্কি পয়েন্ট : মাঙ্কি নামক একজন ঋষির নামানুসারে এই পাহাড়টির নাম রাখা হয়েছিল। যেখানে মন্দিরটি নির্মিত রয়েছে, ইনি সেই স্থানটিকে প্রভু হনুমানের পূজার্চনার জন্য ব্যবহার করতেন। এই মন্দিরটি বর্তমানে এই অঞ্চলে বসবাসকারী বিমান বাহিনীর কর্মী (এয়্যার ফোর্স [...]Read More

এম.পি.বিড়লা প্ন্যানেটেরিয়াম, কলকাতা

বিড়লা তারামন্ডল হল এশিয়ার সবচেয়ে বৃহত্তম তারামন্ডল বিস্ময়কর স্থাপত্যের মহীয়ান পসরা সাজিয়ে কলকাতা তার বাস্তবিক সত্ত্বায় বিকশিত হয়েছে – তাজমহলের ন্যায় দেখতে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, কুতুব মিনারকে স্মরণ করিয়ে দেওয়া শহীদ মিনার এবং তারপর হচ্ছে বিড়লা প্ন্যানেটেরিয়াম। বিড়লা তারামণ্ডল, ভারতের মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের সাঁচী বৌদ্ধস্তূপ ও টাস্কান স্থাপত্যের একটি মিশ্রণের মতো দেখায়। বহু দূর থেকে দৃশ্যমান সূ্র্যের আলোয় আলোকিত নিরাভরণ সাদা গম্বুজটি, সাঁচী বৌদ্ধস্তূপের গম্বুজের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। তারামণ্ডলের পরিধি জুড়ে আবন্টিত শক্তিশালী স্তম্ভগুলি একটি ক্ষুদ্র [...]Read More

খাজুরাহো মন্দির

খাজুরাহো মন্দির তার প্রেমময় শিল্প ভাস্কর্য্যের জন্য প্রসিদ্ধ ভারতের সবচেয়ে এক অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটক আকর্ষণ খাজুরাহো মন্দির-গুলি হল মধ্যযুগীয় হিন্দু ও জৈন মন্দিরগুলির এক বৃহত্তম সমষ্টি। মন্দিরগুলি অভ্যন্তরীণ প্রেমমূলক ভাস্কর্যের জন্য সুপরিচিত। খাজুরাহো মন্দিরগুলি, মধ্য ভারতের চান্ডেলা রাজবংশের সময় নির্মিত হয়েছিল। এই রাজবংশের পতনের পর, মন্দিরগুলি পরিত্যক্ত ও বিস্মৃত হয়ে পড়ে এবং মূল 85-টি মন্দিরের মধ্যে কেবল 22-টি মন্দির টিকেছিল, সেগুলি এক ব্রিটিশ সামরিক ইঞ্জিনীয়ার, ক্যাপ্টেন টি.এস.বার্ট-এর দ্বারা পুর্নস্থাপিত করা হয়। মন্দিরগুলি পশ্চিমী, পূর্বীয় ও [...]Read More