Quantcast

তাজ মহল – আগ্রা, ভারত

তাজ মহল – আগ্রা বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যগুলির মধ্যে অন্যতম তাজমহল, সহিষ্ণু ভালোবাসার এক প্রতীক – সম্রাট শাহজাহান, তাঁর মৃত স্ত্রী মুমতাজ মহলের স্মৃতিরক্ষার্থে এটির নির্মাণ করেছিলেন। সাদা মার্বেলের তৈরি এটি হল একটি মৌসোলিয়াম বা দরগা, যার মধ্যে সম্রাট তাঁর সম্রাজ্ঞীকে সমাধিস্থ করেন এবং তাঁর নিজের মৃত্যুর পর সম্রাট শাহজাহানকে তাঁর স্ত্রীর পাশে সমাধিস্থ করা হয়। শাহজাহান রাজত্বের সরকারী ইতিহাস, আবদূল হামিদ লাহোরি দ্বারা লিখিত তাঁর বাদশাহনামা নামক পুস্তকে তাজমহলকে রৌজা-ঈ মূনাওয়ারা হিসাবে বর্ণিত করেছেন, যার [...]Read More

কুতুব মিনার – দিল্লী, ভারত

কুতুব মিনার ভারতের সর্বোচ্চ প্রস্তর-নির্মিত স্তম্ভ 1198 খ্রীষ্টাব্দে, কুতুব-উদ্দিন-আইবক, বর্তমান কুতুব মিনারের উত্তর-পূর্বে কূব্বত-ঊল-ইসলাম মসজিদ নির্মাণ করেছিলেন। 1202 খ্রীষ্টাব্দ নাগাদ, কুতুব-উদ্দিন-আইবক কুতুব মিনার নির্মাণ করেন। এই স্মৃতিস্তম্ভটি নির্মাণের কারণ জানা যায় নি। কিছু ঐতিহসিক মতপ্রকাশ করেন যে, এটি একটি বিজয় স্তম্ভ হিসাবে নির্মিত হয়, এদিকে অনেকে আবার বলেন যে, এটি শুধুমাত্র মসজিদ সংলগ্ন একটি মিনার। কেউ কেউ আবার বিশ্বাস করেন যে, মুয়াজ্জিন দ্বারা নিষ্ঠাবানদের প্রার্থনার আহ্বানের জন্য এই স্তম্ভটিকে ব্যবহার করা হত। মিনারের শুধু প্রথম [...]Read More

লাল কেল্লা, দিল্লী

দিল্লীর লাল কেল্লা রেড ফোর্ট বা লাল কেল্লার ইতিহাস, মুঘল ইতিহাসের সঙ্গে বিজড়িত, শত শত বছর ধরে এটি তাদের বাসভবন ছিল। 1638 খ্রীষ্টাব্দে, মুঘল সম্রাট শাহজাহান মুঘল সাম্রাজ্যের রাজধানী আগ্রা থেকে দিল্লীতে স্থানান্তরিত করেন। রেড ফোর্ট বা লাল কেল্লা নামে একটি নতুন রাজকীয় ভবনের স্থাপনা হয়। নদীতীরের দিকে 18 মিটার ও শহরের দিকে 33 মিটার উচ্চতার সঙ্গে লাল কেল্লা দৈর্ঘ্যে 2.41 কিলোমিটার জুড়ে প্রসারিত রয়েছে। লাল কেল্লার দুটি প্রধান প্রবেশপথ রয়েছে; দিল্লী গেট এবং লাহোরি [...]Read More

ঋষিকেশ, উত্তরাখন্ড

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে সমৃ্দ্ধ উত্তরাখন্ডের ঋষিকেশ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে সমৃ্দ্ধ গন্তব্যস্থল – ঋষিকেশ মন ও শরীরে এক টু ইন ওয়ান রেসিপির উপলব্ধ করায়। ঋষিকেশ শহরের কেন্দ্রের আরোও উত্তরে, গঙ্গা নদীর তীরে, পর্যটকদের জন্য শান্ত ও নির্মল ঋষিকেশ আচ্ছাদিত রয়েছে। লক্ষণ ঝূলার দক্ষিণে রয়েছে স্বর্গ আশ্রম। একটি চিত্র অনুপম স্থানে আশ্রমটি নির্মিত রয়েছে, যেখানে ঋষি ও ভক্তরা তাদের সিদ্ধিলাভের জন্য যোগসাধনায় চারধারে লিপ্ত থাকেন। মন্দিরটি রোজ সকাল ও সন্ধ্যায় আরতির ঘন্টাধ্বনির অনুষ্ঠানের নিনাদের সঙ্গে প্রতিধ্বনিত হতে থাকে। বাজারগুলি [...]Read More

রামোজী ফিল্ম সিটি, হায়দরাবাদ

হায়দ্রাবাদে রামোজী ফিল্ম সিটির দৃশ্য হায়দরাবাদের সান্নিধ্যতম রামোজী ফিল্ম সিটি, ভারতে বসবাসকারী মানুষেরা তাদের সেলুলয়েড স্বপ্নকে প্রাণবন্ত করতে এখানে আসতে পারেন। এটি ভারতীয় চলচ্চিত্রের প্রযোজক, রামোজী রাও 1996 সালে স্থাপন করেছিলেন। রামোজী ফিল্ম সিটি 2000 একর জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে। এটি বিশ্বের বৃহত্তম স্টুডিও (চিত্রকলা) ভবন হওয়ার গীনিস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড (গীনিস বিশ্ব মর্যাদা) অর্জন করেছে। একটি পূর্ণ-মাপের চলচ্চিত্র প্রযোজনার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্তকিছুর পরিপূর্ণরূপে সুসজ্জিত – প্রযুক্তি থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র মঞ্চ ও নিবেশিত স্টুডিও (চিত্রকলা ভবন) [...]Read More

উটি, তামিলনাড়ু

উটি পাহাড়ের রাণী হিসাবে জনপ্রিয় রূপে পরিচিত ভারতের তামিলনাড়ুতে অবস্থিত উটি হল দক্ষিণ ভারতের সবচেয়ে এক অন্যতম জনপ্রিয় শৈল শহর। নীলগিরি পর্বতের কোলে অবস্থিত, উটির ঐতিহাসিক তাৎপর্য ও নয়নাভিরাম সৌন্দর্য, সারা দেশ জুড়ে পর্যটকদের প্রলুব্ধ করে। “শৈল শহরের রাণী”- নামেও সুপরিচিত উটি তার অনন্য জীববৈচিত্র্যের দরুণ বিশ্বের 14-টি ‘হটস্পট’ বা আগ্রহদীপ্ত স্থান-এর মধ্যে অন্যতম হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে। উটির আকর্ষণ শহরটির অর্থনীতির অধিকাংশই পর্যটনের উপর ভিত্তি করে গড়ে উঠেছে, উটির সমস্ত পরিদর্শন যোগ্য স্থানগুলিকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন [...]Read More

মাউন্ট আবু, রাজস্থান

মাউন্ট আবু, উত্তর পশ্চিম ভারতে অবস্থিত একমাত্র শৈলশহরের জন্য প্রসিদ্ধ মাউন্ট আবু হল ভারতের রাজস্থান রাজ্যের একটি শৈল শহর। এটি উত্তর- পশ্চিম ভারতের একমাত্র শৈল শহর হিসাবে, গ্রীষ্মকালের প্রখর তাপ থেকে রেহাই অন্বেষণকারী পর্যটকদের মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয়। মাউন্ট আবু পর্যটকদের মহিমাম্বিত দর্শনীয় স্থান এবং মন্দিরের আধিক্য সহ উদ্ভিদ ও প্রাণিকুল সমৃদ্ধ প্রচুর জায়গা পরিদর্শনের প্রস্তাব দেয়। ইতিহাস প্রাচীনকাল থেকেই মাউন্ট আবু “অর্বুদাঞ্চল” হিসাবে পরিচিত ছিল। গুর্জরেরা মাউন্ট আবুর স্থানীয় অধিবাসী ছিল বলে মনে করা যেতে [...]Read More

মহাবালেশ্বর, মহারাষ্ট্র

মহাবালেশ্বর তার দৃশ্য-নন্দন সৌন্দর্য এবং সমৃদ্ধ ইতিহাসের জন্য বিখ্যাত পশ্চিমঘাট পর্বতমালার অন্তরে অবস্থিত মহাবালেশ্বর, ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের একটি খুবই জনপ্রিয় পর্যটন গন্তব্যস্থল। স্থানটি তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও সমৃদ্ধ ইতিহাসের জন্য সুপ্রসিদ্ধ। এখানে প্রচুর পর্যটন আকর্ষণ কেন্দ্র রয়েছে, এছাড়াও মহাবালেশ্বরে বেশ কিছু মন্দির ও মহত্বপূর্ণ ভবনও রয়েছে। মহাবালেশ্বরের আকর্ষণ মাউন্ট ম্যালকম : ব্রিটিশ গভর্নর, স্যার জন্ ম্যালকমের নামানুসারে, তাঁর কার্যকালে 1829 খ্রীষ্টাব্দে তাঁর নিজস্ব বাংলো হিসাবে মাউন্ট ম্যালকম নির্মাণ করেন, কারণ এই জায়গাটির প্রতি তিনি প্রবলভাবে [...]Read More

ম্যাকলিয়ড গঞ্জ, হিমাচল প্রদেশ

ম্যাকলিয়ড গঞ্জ হল নির্বাসিত তিব্বতি সরকারের সদর-দপ্তর হিমাচল প্রদেশ রাজ্যে অবস্থিত, ম্যাকলিয়ড গঞ্জ হল ধরমশালার এক শহরতলী এবং মাননীয় দলাই লামার সরকারি বাসভবন। যে কেউ এই অঞ্চলে বেশ কিছু তিব্বতীয় অধিবাসীদের দেখতে পাবেন এবং এখানে আসলে তিব্বতীয় সংস্কৃতির প্রাধান্যই চরিতার্থ হয়েছে। ম্যাকলিয়ড গঞ্জের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সহ, এই সমস্ত কিছু এটিকে উত্তর ভারতের এক জনপ্রিয় প্রবেশদ্বার হিসাবে গড়ে তুলেছে। ম্যাকলিয়ড গঞ্জ-এর আকর্ষণ সূগলাগখাঙ্গ ভবন : ভবনটি খুব সম্ভবত এই অঞ্চলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভবন কারণ এটিই সেই [...]Read More

নৈনিতাল, উত্তরাখন্ড

নৈনিতাল ভারতের সবচেয়ে এক অন্যতম শ্রেষ্ঠ জনপ্রিয় পর্যটক আকর্ষণ নৈনিতাল, ভারতের উত্তরাখন্ড রাজ্যের একটি খুবই জনপ্রিয় শৈল শহর। “ভারতের হ্রদ জেলা” হিসাবে গণ্য নৈনিতাল, তার সরল শান্ত ও মনোরম সৌন্দর্য এবং হ্রদের জন্য বিখ্যাত। রাশকিন্ বন্ড, জিম করবেট ও ব্রিটিশ অভিনেতা এরিক মাটুরিন-এর ন্যায় কিংবদন্তিমূলক ব্যাক্তিদের সংযোগসূ্ত্রে নৈনিতাল প্রকৃতি প্রেমীদের কাছে এক স্বপ্নের গন্তব্যস্থল হয়ে উঠেছে। নৈনিতালের আকর্ষণ নৈনি লেক : নৈনিতাল লেক নামেও সুপরিচিত, এটি সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটক আকর্ষণ। লেকটির উত্তর প্রান্ত মল্লিতাল নামে [...]Read More